কোরআন কি ১৪০০ বছর আগেই জানিয়েছে যে একটি শিশু দৃষ্টিশক্তির আগে শ্রবণশক্তি পায়?

Print Friendly, PDF & Email

সূচনা

মুসলিম অ্যাপোলজিস্টগণের মধ্যে অনেকেই এমনটা দাবি করে থাকেন যে, কোরআন ১৪০০ বছর আগেই আমাদের জানিয়েছে, একটি শিশু দৃষ্টিশক্তি পাওয়ার আগে শ্রবণশক্তি পায়, যা আধুনিক বিজ্ঞান আবিষ্কার করেছে মাত্র কিছুদিন আগে। সত্যিই কি কোরআনের কোনো আয়াতে এমনকিছু বলা হয়েছে? সেই প্রশ্নের উত্তরই এই প্রবন্ধ থেকে পাওয়া যাবে।

মিরাকলের দাবি

একটি ভ্রূণের প্রথম ইন্দ্রিয়সমূহের একটি হচ্ছে শ্রবণশক্তি। জন্মের অনেক আগেই একটি শিশু তার মায়ের কণ্ঠস্বর শুনতে পারে। দৃষ্টিশক্তি আরও পরে পায়। সম্প্রতিই এই তথ্যটি আবিষ্কৃত হয়েছে। তবে, কোরআন সেই ১৪০০ বছর আগেই এটি জোর দিয়ে বলেছে যে, ঈশ্বর আমাদের দৃষ্টিশক্তির আগে আমাদের শ্রবণশক্তি সৃষ্টি করেছেন:

“আমি মানুষকে সৃষ্টি করেছি সংমিশ্রিত শুক্রবিন্দু থেকে তাকে পরীক্ষা করার জন্য, এজন্য তাকে করেছি শ্রবণশক্তি ও দৃষ্টিশক্তির অধিকারী।” (কোরআন ৭৬:২)

“তিনিই তোমাদের জন্য সৃষ্টি করেছেন কান, চোখ ও অন্তর; তোমরা কৃতজ্ঞতা অল্পই করে থাক।” (কোরআন ২৩:৭৮)

কোরআন সর্বদাই দৃষ্টিশক্তির আগে শ্রবণশক্তির কথা উল্লেখ করেছে, যা এটাই নির্দেশ করে যে, দৃষ্টিশক্তির আগে শ্রবণশক্তি সৃষ্টি হয়।

১৪০০ বছর আগের একজন নিরক্ষর মানুষ কি করে এটা জানতে পারলেন যে দৃষ্টিশক্তির আগে শ্রবণশক্তি তৈরি হয়? [1]

আয়াতসমূহ

76:2
اِنَّا خَلَقۡنَا الۡاِنۡسَانَ مِنۡ نُّطۡفَۃٍ اَمۡشَاجٍ ٭ۖ نَّبۡتَلِیۡہِঅ فَجَعَلۡنٰہُ سَمِیۡعًۢا بَصِیۡرًا ﴿۲﴾
English – Sahih International
Indeed, We created man from a sperm-drop mixture that We may try him; and We made him hearing and seeing.
Bengali – Bayaan Foundation
আমি মানুষকে সৃষ্টি করেছি মিশ্র শুক্রবিন্দু থেকে, আমি তাকে পরীক্ষা করব, ফলে আমি তাকে বানিয়েছি শ্রবণ ও দৃষ্টিশক্তিসম্পন্ন।
Bengali – Taisirul Quran
আমি মানুষকে সৃষ্টি করেছি সংমিশ্রিত শুক্রবিন্দু থেকে তাকে পরীক্ষা করার জন্য, এজন্য তাকে করেছি শ্রবণশক্তি ও দৃষ্টিশক্তির অধিকারী।

23:78
وَ ہُوَ الَّذِیۡۤ اَنۡشَاَ لَکُمُ السَّمۡعَ وَ الۡاَبۡصَارَ وَ الۡاَفۡـِٕدَۃَ ؕ قَلِیۡلًا مَّا تَشۡکُرُوۡنَ ﴿۷۸﴾
English – Sahih International
And it is He who produced for you hearing and vision and hearts; little are you grateful.
Bengali – Bayaan Foundation
আর তিনিই তোমাদের জন্য কান, চোখসমূহ ও অন্তরসমূহ সৃষ্টি করেছেন; তোমরা কমই কৃতজ্ঞতা প্রকাশ কর।
Bengali – Taisirul Quran
তিনিই তোমাদের জন্য সৃষ্টি করেছেন কান, চোখ ও অন্তর; তোমরা কৃতজ্ঞতা অল্পই করে থাক।

বিশ্লেষণ

আয়াত দুটি কেবল এটাই বলছে যে, আল্লাহ্ আমাদের শ্রবণশক্তি এবং দৃষ্টিশক্তি দিয়েছেন। কোনোভাবেই প্রকাশ পাচ্ছে না যে, আল্লাহ্ আমাদের আগে শ্রবণশক্তি দিয়েছেন এবং তারপরেই দৃষ্টিশক্তি দিয়েছেন।

প্রথম আয়াতটিতে আমরা দেখতে পাচ্ছি, আগে ‘শ্রবণশক্তি’ ও তারপর ‘দৃষ্টিশক্তি’ শব্দটি উল্লেখ করা হয়েছে এবং শব্দ দুটির মাঝখানে ‘ও’ এসেছে, ‘তারপর’ও আসেনি, ‘অতঃপর’ও আসেনি। তাহলে আমরা কিভাবে এটা বুঝবো যে, আয়াতটিতে দৃষ্টিশক্তির আগে শ্রবণশক্তি সৃষ্টি হয় বুঝানো হয়েছে?

দ্বিতীয় আয়াতেও, আগে কান ও তারপর চোখ শব্দটি এসেছে এবং তাদের মাঝখানে কমা ব্যবহার করা হয়েছে। যা থেকে কোনোভাবেই বোঝা যাচ্ছে না, দৃষ্টিশক্তির আগে শ্রবণশক্তি সৃষ্টি হয়।

বিষয়টি একটি অনুমান ছাড়া কিছুই না, যে অনুমানের কোনো ভিত্তি নেই।

কোরআন যদি সত্যি সত্যিই বলতো যে, দৃষ্টিশক্তির আগে শ্রবণশক্তি সৃষ্টি হয়, তাহলে কি সেটা কোরআনের একটি বৈজ্ঞানিক মিরাকল বলে গণ্য করা যেতো? না! সপ্তম শতাব্দীর একজন মানুষের জন্য এটা ধারণা করাটা খুব কঠিন কিছু নয় যে, একটি শিশু তার মায়ের গর্ভে থেকে কিছু দেখতে না পারলেও হয়তো শুনতে পারে।

উপসংহার

উপরিউক্ত আলোচনা থেকে বোঝা যায় যে, মুসলিম অ্যাপোলজিস্টগণ যা দাবি করেন তার পুরোটাই অনুমান-নির্ভর, যা থেকে কিছুই প্রমাণিত হয় না।


আরও পড়ুন


তথ্যসূত্রঃ
  1. Miracles of Quran: Human Senses []

Marufur Rahman Khan

Marufur Rahman Khan is a Bangladeshi Atheist, Feminist, Secularist Blogger.

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *